30 Srabon 1429 বঙ্গাব্দ সোমবার ১৫ অগাস্ট ২০২২
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » নগরকান্দা » নগরকান্দায় টিসিবি’র পণ্য দিয়ে চেয়ারম্যান করলেন ভুড়িভোজের আয়োজন

নগরকান্দায় টিসিবি’র পণ্য দিয়ে চেয়ারম্যান করলেন ভুড়িভোজের আয়োজন


বিশেষ প্রতিবেদক
ফরিদপুরের নগরকান্দায় টিসিবি’র তেল, ডাল ও চিনি নিয়ে এক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ডিলারের কাছ থেকে জালিয়াতি করে নেওয়া সেই জিনিষপত্র দিয়ে মহাভোজের আয়োজন করে এলাকাবাসীকে খাইয়েছেন চেয়ারম্যান। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন
প্রাপ্ত অভিযোগ ও স্থানীয়রা জানান, নগরকান্দার চরযশোরদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সাহেব ফকির ঈদের পরের দিন মঙ্গলবার তার নিজ বাড়ীতে ভুড়িভোজের আয়োজন করেন। সেই অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের নগরকান্দা, সালথা উপজেলার শীর্ষ স্থানীয় নেতা-কর্মী ও এলাকাবাসীকে দাওয়াত দেন। অনুষ্ঠানে দুই হাজার লোকের খাবারের আয়োজন করা হয়। খাবারের মেন্যুতে ছিল পোলাও, মুরগীর রোষ্ট, গরুর মাংস, মিষ্টিসহ বিভিন্ন রকমারী খাবার। সেই ভুড়িভোজের আয়োজনে চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সাহেব ফকির টিসিবি’র পন্য সামগ্রী ব্যাবহার করেন। এরমধ্যে তেল, ডাল ও চিনি রয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, টিসিবি’র কোন পণ্য নিতে হলে স্থানীয় চেয়ারম্যানের সাক্ষরকৃত হলুদ রংয়ের কার্ড দেখাতে হয়। এছাড়া একজন ব্যক্তি একবারই পণ্য নিতে পারবেন। কিন্তু চেয়ারম্যান সাহেব ফকির টিসিবি’র তালমা ইউনিয়নের কোনাগ্রামের ডিলার মেসার্স হাসান ষ্টোরের স্বত্তাধীকারী রাকিব মল্লিকের কাছ থেকে ৮০ লিটার তেল, ৮০ কেজি ডাল ও ৪০ কেজি চিনি নেন। এসময় চেয়ারম্যান তার এলাকার বিভিন্ন ব্যক্তির ৪০টি হলুদ রংয়ের কার্ড দেখিয়ে এসব পণ্য নিয়ে যায়।
এ বিষয়ে ডিলার রাকিব মল্লিক জানান, চরযশোরদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাহেব ফকির টিসিবি’র পণ্য বহনকৃত গাড়ীটি তার বাড়ীতে নিতে বলেন। কিন্তু আমরা তা করিনি। পরে বোর্ড অফিসে গাড়ীটি নিয়ে রাখা হয়। চেয়ারম্যান সাহেব ফকির ও তার ছেলে বিপ্লব জামান শুক্রবার ৪০টি কার্ড নিয়ে টিসিবি’র পণ্য নিতে আসেন এবং বলেন, বাড়ীর পাশের লোকজনের সুবিধার্থে ৪০ জনের পণ্য তিনি নিয়ে তার কাছে রাখবেন। এসব পণ্য সামগ্রী পরে তাদের দিয়ে দেবেন। বিষয়টি স্থানীয়দের সন্দেহ হলে তারা প্রতিবাদ করেন। ফলে একজনের কাছে ৪০টি কার্ডের পণ্য দিতে অস্বীকৃতি জানালে চেয়ারম্যানের ছেলে বিভিন্ন হুমকি দেন। পন্য না দিলে পরিনাম ভালো হবেনা বলেও হুমকি দেওয়া হয়। পণ্য না দিলে একপর্যায়ে জোরপূর্বক ভাবেই আমাদের কাছ থেকে পণ্য গুলো নিয়ে যায়। এ বিষয়ে তাৎক্ষনিক ভাবে নগরকান্দা উপজেলার ভারপ্রাপ্ত ইউএনও আবদুল্লাহ আল মামুনকে জানানো হয়।
স্থানীয় এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, সরকার টিসিবি’র পণ্য গুলো দিয়েছেন হতদরিদ্রদের জন্য। কিন্তু চেয়ারম্যান বিভিন্ন জনের কাছ থেকে ৪০টি কার্ডের মাধ্যমে টিসিবি’র পণ্য তুলে নিয়ে ভুড়িভোজের আয়োজন করেছেন যা নিন্দনিয় কাজ। এতে করে দরিদ্র মানুষের হক নষ্ট হয়েছে।
এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সাহেব ফকিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোনটি রিসিভ করেননি।

আরও পড়ুন...

সালথা উপজেলা চেয়ারম্যানের মুক্তির দাবীতে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন

বিশেষ প্রতিবেদক। ফরিদপুরের সালথা উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ ওয়াদুদ মাতুব্বরের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক সাজানো মামলা দেওয়ার প্রতিবাদে …

নগরকান্দা খাদ্য গুদামে ৬০ টন পচা চাল নিয়ে তোলপাড়

বিশেষ প্রতিবেদক। ফরিদপুরের নগরকান্দা খাদ্য গুদামে আনা তিন ট্রাক নিন্মমানের পচা চাল আটকে দিয়েছে স্থানীয়রা। …