3 Kartrik 1428 বঙ্গাব্দ সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » বোয়ালমারী » বোয়ালমারীতে পার্কের আড়ালে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগ

বোয়ালমারীতে পার্কের আড়ালে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগ

জাকির হোসেন, বোয়ালমারী।

উপজেলার হাসামদিয়া গ্রামস্থ গাওগ্রাম পার্কের বিরুদ্ধে অভিযোগের অন্ত নেই। পার্ক বা বিনোদন কেন্দ্রের আড়ালে প্রতিষ্ঠানটি চরম অনৈতিক-অসামাজিক কার্যকলাপের উন্মুক্ত ক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। এ নিয়ে সিমাহীন অস্বস্তিতে ভুগছেন তারা। প্রতিকার চেয়ে জেলা প্রশাসক,পুলিশ সুপার সহ সরকারী ৫ দপ্তরে দরখাস্ত দিয়েছেন ভুক্তভোগী এলাকাবাসী।একাধিক ব্যাক্তি সাক্ষরিত লিখিত অভিযোগ ও এলাকার বিভিন্ন সূত্রে জানাযায়,গাঁও-গ্রাম বা ভিলেজ পার্কটি মূলত একটি কৃষি খামার। গরু ও মৎস্য চাষের লক্ষে চাষির হাসি লিঃ নাম দিয়ে ২০১০ সালে বাংলাদেশ ব্যাংকের আইসিবি শাখা থেকে ৩ কোটি টাকা ঋন নিয়ে প্রকল্পটি চালু করেন স্থানীয় বাসিন্দা মির্জা জাকারিয়া বেগ। এটি বাস্তবায়নে বেশ কিছু অবকাঠামো নির্মান করা হলেও বেশীদূর এগোতে পারেনি প্রকল্পটি। পরবর্তীতে চাষীর হাসি লিঃ এর খোলস বদলে এটি গাঁও-গ্রাম পার্কে রুপান্তর করা হয়। যদিও এর কোন বৈধ অনুমতি নেই বলে দাবী অভিযোগ কারীদের। আর পার্ক প্রতিষ্ঠার পর থেকেই প্রতিষ্ঠানটির ভিতরে শুরু হয় নানাবিধ অশ্লীল, বেআইনি তৎপরতা। বর্তমানে পার্কটি বহিরাগত তরুণ-তরুণী,যুবক-যুবতীদের কুরুচিপূর্ণ, নোংরা কার্যকলাপের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। বিনোদনের নামে সকাল থেকে গভীর রাত অব্দি চলে তাদের এই অবৈধ কার্যকলাপ। কর্তৃপক্ষ অর্থের বিনিময়ে এসব নোংরা কার্যকলাপ চালানোর সুযোগ দিচ্ছে দর্শনার্থীদের। আর এগুলো প্রত্যক্ষ করে আশপাশের কোমলমতি শিশুকিশোররা নৈতিক ও আদর্শগত ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। লাজলজ্জার মুখে পড়ছেন অভিভাবক তথা বয়স্করা। এছাড়া পার্কটির একদিকে কবরস্থান আরেক ঈদগাহ ময়দান রয়েছে।পার্কের অসাধু কার্যকলাপে এদুটি স্থাপনার পবিত্রতাও নষ্ট হচ্ছে। অপরদিকে এসব অন্যায় কার্যকলাপের প্রতিবাদ করতে গিয়েও নানা অপ্রীতিকর ঘটনার জন্ম হচ্ছে। নিরীহ ও প্রতিবাদী তরুণ-যুবকরা কর্তৃপক্ষের দ্বারা হামলা-মামলা সহ বিভিন্ন নিগ্রহের শিকার হচ্ছে। মোদ্দাকথা এলাকার শান্তিশৃঙ্খলা ভঙ্গের বড় কারণ হয়ে দাড়িয়েছে এই অবৈধ বিনোদন স্পষ্টটি। ফলে লিখিত অভিযোগে পার্কটি বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নিতে জোরদাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী। এব্যাপারে জানতে চাইলে পার্কের মালিক মির্জা জাকারিয়া বেগ বলেন,কয়েক একর জায়গার উপর খামারটি গড়ে তোলা হয়েছিল। একাধিক বড় পুকুর, সবুজ বৃক্ষরাজীতে এক নান্দনিক পরিবেশ তৈরি হয়েছে স্থাপনাটি ঘিরে। তাই সেখানে মানুষ ঘুরতে আসে বিনোদনের জন্য। আমিও তাদের জন্য কিছু চেয়ার-টেবিল,শিশুদের খেলার কিছু অবকাঠামো তৈরী করেছি। এখানে কোন অশ্লীল কার্যকলাপ হয়না। ভালো কাজ করছি বলে প্রতিপক্ষরা তা সইতে না পেরে ষড়যন্ত্র করছে। এব্যাপারে বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিমের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন,অভিযোগ পেয়ে আমি উভয় পক্ষকে নোটিশের মাধ্যমে ডেকে ছিলাম। তবে পার্ক কর্তৃপক্ষ আসেনি। পরে ওসিকে আইনানুগ ব্যাবস্থা নিতে বলেছি।

আরও পড়ুন...

‘বোয়ালমারী জনতা জুটমিলে অগ্নিকান্ডে ব্যাপক ক্ষতি’

বোয়ালমারী প্রতিনিধি # ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় জনতা জুটমিলে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার সাতৈর ইউনিয়নের …

বোয়ালমারীতে অগ্নিকাণ্ডে বৃদ্ধার মৃত্যু

বোয়ালমারী প্রতিনিধি: # ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় আগুনে পুড়ে ছিয়ারন নেছা (৬৫) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যুর …