3 Kartrik 1428 বঙ্গাব্দ সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
Home » এক্সক্লুসিভ » বিএনপি নেতার কান্ড! আওয়ামী লীগের পদ ব্যবহার করে প্রচারনা, আদালতে মামলা

বিএনপি নেতার কান্ড! আওয়ামী লীগের পদ ব্যবহার করে প্রচারনা, আদালতে মামলা

বিশেষ প্রতিবেদক।
ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলা বিএনপির উপদেষ্টা মোঃ ফিরোজ খানের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের পদ ব্যবহার করে এলাকায় পোষ্টার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড টানানোর ঘটনায় তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে। ভুয়া পদ ব্যবহার করে রাতারাতি আওয়ামী লীগ নেতা সেজে প্রতারনা করছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। এ ঘটনায় নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের দৃষ্টিগোচর করা হলে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা ও সাধারন সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন সাক্ষরিত একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারন সম্পাদক বরাবরে। সেখানে ফিরোজ খানের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহনের কথা বলা হয়েছে। এদিকে, বিএনপি নেতা ফিরোজ খানের আওয়ামী লীগের পদ ব্যবহার করায় ফরিদপুরের ৪নং আমলী আদালতে একটি মামলা হয়েছে। মামলাটি দায়ের করেছেন নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য মোঃ বাবুল আক্তার।
স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা অভিযোগ করে বলেন, ফিরোজ খান এলাকায় বিএনপির প্রভাবশালী নেতা। তিনি কয়েকবার বিএনপির সমর্থন নিয়ে তালমা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। হঠাৎ করেই তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন স্থানে বিলাের্ড, ফেস্টুন টানিয়েছেন। যা বিএনপি নেতার প্রতারনা। তাদের অভিযোগ, বিগত ২০১৩ সালে উপজেলা আওয়ামী লীগের যে কমিটি গঠন করা হয় সে কমিটিতে যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পদে তিন জন নির্বাচিত হন। তারা হলেন, মোঃ জামাল হোসেন মিয়া, মোঃ রওশন আলী ও মোঃ লিয়াকত আলী। এরপর সম্মেলন না হওয়ায় সেই কমিটিই বহাল রয়েছে। অন্যদিকে, ২০১৫ সালে জেলা বিএনপির সভাপতি-সাধারন সম্পাদক নগরকান্দা উপজেলা বিএনপির যে কমিটি অনুমোদন দেন সেই কমিটির ৪ নং উপদেষ্টা হিসাবে রয়েছেন ফিরোজ খান। দল থেকে পদত্যাগ না করে অন্যদলের ভুয়া পরিচয় দিয়ে প্রতারনা করায় ফিরোজ খানের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের প্যাডে গনমাধ্যমের কর্মীদের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে বলা হয়, নগরকান্দা উপজেলা বিএনপির বর্তমান উপদেষ্টা, এলাকার চিহিৃত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও মাদক ব্যবসায়ীদের গডফাদার, অর্ধডজন মামলার আসামী ফিরোজ খান সম্প্রতি নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের ভুয়া যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পদ ব্যবহার করে পোষ্টার, ব্যানার, বিলবোর্ড লাগিয়ে প্রতারনার মাধ্যমে এলাকায় নিরিহ জনগন, ত্যাগী আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। প্রকৃত পক্ষে তিনি আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত নন। গত উপজেলা নিবাচনে সে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রচারনায় অংশ নেন। তালমা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও সে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে অংশ নিয়ে পরাজিত হন। চিঠিতে বলা হয়, ফিরোজ খানের বিরুদ্ধে এলাকায় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে হামলা ও মামলার অভিযোগ রয়েছে। তার হামলা ও মামলার কারনে অনেক আওয়াম্যী লীগের কর্মী এলাকা ছাড়া।
এদিকে, আওয়ামী লীগের পরিচয় ব্যবহার করায় ফিরোজ খানের বিরুদ্ধে ফরিদপুরের ৪নং আমলী আদালতের বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতে গত ২৭ মার্চ একটি মামলা দায়ের হয়েছে। মামলায় ফিরোজ খানকে একমাত্র আসামী করে এ মামলাটি দায়ের করেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা বাবুল আক্তার। মামলার আর্জিতে তিনি ফিরোজ খানের বিরুদ্ধে বিএনপি নেতা হওয়া সত্তেও আওয়ামী লীগের পদ ব্যবহার করে প্রতারনার অভিযোগ আনেন।
এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা জানান, আমাদের কাছে যে ডকুমেন্ট রয়েছে তাতে ফিরোজ খান স্থানীয় বিএনপির উপদেষ্টা হিসাবে রয়েছেন। তার বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারন সম্পাদককে চিঠি দেওয়া হয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের চিঠি পাবার পরই তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
এ বিষয়ে ফিরোজ খানের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

আরও পড়ুন...

ভিন্ন গ্রুপের রক্ত পুশ করায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে এক প্রসূতি

বিশেষ প্রতিবেদক। চিকিৎসক এবং প্যাথলজি বিভাগের ভুলে ভিন্ন গ্রুপের রক্ত শরীরে পুশ করায় মৃত্যুর সাথে …

সালথায় অজ্ঞাতনামা যুবকের লাশ উদ্ধার

সালথা প্রতিনিধি # ফরিদপুরের সালথা উপজেলার মাঝারদিয়া ইউনিয়নের কাগদি গ্রামের একটি বাগান থেকে ৩৫ বছর …