সদরপুর

সদরপুরে বায়নার টাকা নিয়ে জমি লিখে না দেয়ার অভিযোগ

ফরিদপুরের সদরপুরের চর চাঁদপুর এলাকা প্রায় ৪ একর জমির বায়নার টাকা নিয়ে জমি লিখে না দিয়ে প্রতারনার অভিযোগ পাওয়া গেছে। চর চাঁদপুর বৈরাগ ডাঙ্গী এলাকার জনৈক সেক মজিবুর রহমান এ প্রতারনার অভিযোগ করে তার প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। টাকা নিয়ে জমি লিখে না দিয়ে টালবাহানা করায় বুধবার দুপুরে ভাষানচর নতুন বাজারে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মজিবুর রহমান। তিনি বলেন, জমির মালিক খগেন্দ্রনাথ বিশ্বাস ২০০৪ সালে নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে তার কাছ থেকে ৩ একর ৭৫ শতাংশ জমির বায়নার ৫ লাখ টাকা নেয়। বায়নার টাকা নেবার পর জমির মালিক আমার অনুকুলে সেই জমি বুঝিয়েও দেয়। দীর্ঘদিন আমি সেই জমি ভোগদখল করে আসছি। পরবর্তীতে জমি লিখে দেবার কথা বলা হলে নানা অজুহাতে সময় ক্ষেপন করতে থাকে। এ নিয়ে একাধিক বার স্থানীয় ভাবে সালিশ বৈঠক হলে খগেন্দ্রনাথ বিশ্বাস আমাকে জমি লিখে দেবে বলে জানায়। কিন্তু সে তার জমি লিখে দেয়নি। পরবর্তীতে জমিটি সরকারী খাস খতিয়ানে অন্তভুক্ত হয়। এ নিয়ে আদালতে মামলা হলে আমার পক্ষে রায় হয়। জমি লিখে না দেয়ায় তার কাছে টাকা ফেরত চাইলে সে টালবাহানা শুরু করে। টাকা ফেরত চাইলে উল্টো মামলা করার হুমকি দেয়। সম্প্রতি আমার দখলে থাকা জমিতে টিনের দোচালা একটি ঘর ভেঙ্গে ফেলে। ঘরটি পূর্ন স্থাপন করা হলে রাতের আধারে আগুন দিয়ে তা পুড়িয়ে দেয়া হয়। ফলে আমার আর্থিক ক্ষতি হয়। এ বিষয়ে গত বছরের ২৫ নভেম্বর বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। সেই মামলায় আমার পক্ষে রায় হয়। সেই অবস্থায় দ্বিতীয় পক্ষের আবেদনে আদালত জমির উপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। সেই মামলায় আমি আদালতে জবাব দাখিল করলে বিজ্ঞ আদালত আমার পক্ষে রায় প্রদান করে। ফলে আমি দখলীয় জমিতে চাষাবাদ ও ঘর তৈরী করি। গত ২৭ মে আমার ঘরটি ভেঙ্গে ফেলে। শুধু তাই নয়, আমার কাছ থেকে টাকা নিয়ে জমি লিখে না দিয়ে উল্টো আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন জায়গায় আপত্তিকর কথা বলে বেড়াচ্ছে। সংবাদ সম্মেলন থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের নিকট দাবী জানানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *