ফরিদপুর সদর

ফরিদপুরে ডেঙ্গুতে মারা গেল এক ব্যবসায়ী

সোহাগ জামান # ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর মিছিল কিছুতেই থামছে না। আজ শনিবার এ রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেল আরেকজন। এ নিয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০ জনের মৃত্যু হলো। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিরাজুল ইসলাম নামের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। আজ শনিবার সকাল ৭ দিকে তিনি মারা যান। সিরাজুল ইসলাম গত মঙ্গলবার সকালে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৪নং পুরুষ ওয়ার্ডে ভর্তি হন। নিহত সিরাজুল ইসলামের পৈত্রিক বাড়ী ফরিদপুরের সালথা উপজেলার নারানদিয়া গ্রামে। সে ওই এলাকার মৃত ফেলু শেখের পুত্র।
সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী মাসুদা আক্তার জানান, গত ২৪ তারিখ সিরাজুল ইসলাম জ্বরে আক্তান্ত হলে মাদারীপুরের শিবচর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এরপর থেকে তার অবস্থা অপরিবর্তিত ছিলো। আজ সকালে তিনি মারা যান। মাসুদা আক্তার আরো বলেন, তার স্বামীর ব্যবসা সূত্রে তারা মাদারীপুর জেলার শিবচরে বসবাস করতেন। সেখানে এখন তার লাশ নিয়ে গিয়ে সেখানেই তাকে দাফন করা হবে।
ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. কামদা প্রসাদ সাহা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গত ২৪ তারিখ সিরাজুল ইসলাম জ্বরে আক্তান্ত হলে তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসে ভর্তি হন। আজ সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগী ও তাদের স্বজনেরা অভিযোগ করে বলেন, হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা নিয়ে তারা সন্তুষ্ট নন। তাদের দাবী, ডেঙ্গুতে যারা আক্রান্ত হচ্ছেন তারা নানা রকমের হয়রানীর শিকার হচ্ছেন। তবে হাসপাতাল কতৃপক্ষ এসব অভিযোগ অস্বিকার করে বলেছেন, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগীদের সব্বোর্চ সেবা তারা দিচ্ছেন।
এদিকে, সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ঘন্টায় ফরিদপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে নতুন ভর্তি হয়েছেন ২৫ জন। বর্তমানে জেলার বিভিন্ন হাসপাতাল গুলোতে মোট চিকিৎসা নিচ্ছেন ২০৩ জন। গত ২০ জুলাই থেকে এ পর্যন্ত ২ হাজার ৭শ ৯৫ জন চিকিৎসা নিয়েছেন। এরমধ্যে ছুটি নিয়ে বাড়িতে ফিরে গেছেন ২ হাজার ১শ ৪৬জন রোগি। আর ঢাকায় রের্ফাড করা হয়েছে ৪৩৭ জনকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *