6 Magh 1428 বঙ্গাব্দ বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০২২
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » নগরকান্দা » নগরকান্দার তালমা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থীর অফিস ভাংচুর

নগরকান্দার তালমা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থীর অফিস ভাংচুর

বিশেষ প্রতিবেদক।

ফরিদপুরের নগরকান্দার তালমা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এরই জের ধরে বুধবার বিকেলে আওয়ামী লীগের সমর্থিত প্রার্থীর সমর্থকেরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী অফিসে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর চালিয়েছে। এ ঘটনায় রইস ও আক্কাস নামের দুই যুবক আহত হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তালমা ইউনিয়নে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১১ নভেম্বর তালমা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন চান দলের একাধিক প্রার্থী। এদের মধ্যে রনজিত কুমার মন্ডলকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেওয়া হয়। মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে দলের বিদ্রোহী প্রার্থী হন সাবেক চেয়ারম্যান আবু সহিদ মিয়ার ছেলে কামাল হোসেন মিয়া। ফলে দুইভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী যুবলীগ কর্মী জাকির হোসেন জানান, মোটর সাইকেল প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী কামাল হোসেন মিয়ার বিলনালিয়া নতুন বাজারের একটি অফিসে বসে কথা কয়েকজনের সাথে কথা বলছিলেন তালমা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তৈয়বুর রহমান। বিকেলে সাড়ে চারটার দিকে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর দুই শতাধিক সমর্থক নৌকার স্লোগান দিয়ে অফিসে থাকা যুবলীগ নেতা রইস ও আক্কাস নামের দুই যুবককে বেধরোক মারপিট করে। এসময় তারা অফিসে হামলা চালিয়ে চেয়ার-টেবিল ও অফিসটি ভাংচুর করে। পরে তারা অফিসে থাকা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তৈয়বুর রহমানকে ধাওয়া করে। তিনি পাশর্^বর্তী একটি বাড়ীতে আশ্রয় নিলে সেখানে গিয়ে হামলাকারীরা বাড়ী ভাংচুর করে।

এ বিষয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী কামাল হোসেন মিয়া বলেন, আমি মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। আবার বাবা দীর্ঘদিন এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন। আমার মা বর্তমান চেয়ারম্যান হিসাবে রয়েছেন। আমার পরিবার আওয়ামী পরিবার। আমি নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় প্রতিপক্ষের লোকজন আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়। তারা আমার নির্বাচনী ক্যাম্প ভাংচুর করেছে। দুইজনকে পিটিয়ে আহত করেছে। এ বিষয়ে আমি থানায় অভিযোগ দায়ের করবো।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী রনজিত কুমার মন্ডলের সাথে কথা বলার চেষ্টা করেও তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

আরও পড়ুন...

জেল থেকে মুক্তি পেলেন নব-নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান ইশারত হোসেন

আবু নাসের হুসাইন, সালথা দীর্ঘ নয় মাস কারাভোগের পর জেল থেকে মুক্তি পেলেন ফরিদপুরের সালথা …

সালথায় নবনির্বাচিত ইউপি সদস্যদের শপথ গ্রহণ    

সালথা প্রতিনিধি ফরিদপুরের সালথা উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নের নবনির্বাচিত ৭২ জন সাধারন সদস্য ও ২৪ …