4 Kartrik 1428 বঙ্গাব্দ বুধবার ২০ অক্টোবর ২০২১
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » ফরিদপুর সদর » চিকিৎসক বদলী- হুমকির মুখে ফরিদপুর করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের চিকিৎসাসেবা

চিকিৎসক বদলী- হুমকির মুখে ফরিদপুর করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের চিকিৎসাসেবা

বিশেষ প্রতিবেদক।
করোনা চিকিৎসার দায়িত্বে নিয়োজিত গুরুত্বপূর্ণ চিকিৎসকদের প্রেশনে বদলি কারায় হুমকির মুখে পড়েছে ফরিদপুর করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের চিকিৎসাসেবা। এ সিদ্ধান্ত পুনবিবেচনার দাবি জানিয়েছে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও জেলা করোনা নিয়ন্ত্রণ কমিটি। একই দাবি জানিয়েছে জেলা বিএমএ।
গত ৫ জুলাই বিকেলে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ থেকে রাষ্ট্রপতির পক্ষে উপ-সচিব জাকিয়া সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপন থেকে জানা যায় ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজে কর্মরত ৬৩জন শিক্ষককে প্রেষণে বদলি করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৭ জনকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল, ১৬ জনকে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতাল এবং ২০ জনকে ফরিদপুর করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের সাথে সংযুক্ত করা হয়।
ওই প্রজ্ঞাপনে যে ২৭ জনকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে বদলি করা হয়েছে তাদের মধ্যে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড ও আইসিইউতে কর্মরত গুরুত্বপূর্ণ কয়েকজন চিকিৎসক রয়েছেন।
তারা হলেন সহকারি অধ্যাপক পর্যায়ে অনন্ত কুমার বিশ্বাস, খান মো. আরিফ, গিয়াসউদ্দি আহমেদ, কামালউদ্দিন আহমেদ, আবু ফয়সাল মো. পারভেজ, মাকসুদা খাতুন, মো. মুজাহিদুল ইসলাম এবং প্রভাষক পর্যায়ে মেহেদী মাসুদ, সমিউল ইসলাম, অঞ্জন কুমার দাস, সিদ্ধার্থ শঙ্কর অন্যতম।
ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক মো. আসাদউল্লাহ বলেন, যাদের শরীয়তপুর বদলি করা হয়েছে তাদের অনেকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড ও আইসিইউ এর সাথে যুক্ত। এর মধ্যে আইসিইউএর প্রধান আনন্দ বিশ্বাসও রয়েছেন। অন্য চিকিৎসকরা করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎ্রসারত রোগীদের দেখাশোনা করেন।
তিনি বলেন, গুরুত্বপূর্ণ ওই চিকিৎসকরা চলে গেলে ফরিদপুরে করোনা রোগীদের চিকিৎসা ব্যহত হবে। এ হাসপাতালে শুধু ফরিদপুর নয় আশেপাশের রাজবাড়ী, মাগুরা, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, ঝিনাইদহ জেলার রোগীরাও চিকিৎসা নিতে আসেন। এ বদলি কার্যকর করা হলে এ হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা মারাত্মক ভাবে ব্যহত হবে। তাছাড়া সম্প্রতি করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালকে ২৫০ শয্যা থেকে ৫০০ শয্যার উন্নীত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় যেখানে চিকিৎসক প্রয়োজন সেখানে দায়িত্বশীল চিকিৎসকদের সরিয়ে নেওয়ার কোন সুযোগ নেই।
ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক সাইফুর রহমান বলেন, এ আদেশ পুণ বিবেচনার জন্য গত সোমবারই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবের কাছে লিখিত অনুরোধ জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের আরও নতুন চিকিৎসক প্রয়োজন। সম্প্রতি ১২৫জন চিকিৎসক চেয়ে একটি আবেদনও কার হয়েছে। তার বাস্তবায়ন না করে ওই চিকিৎসকদের সরিয়ে দেওয়া হলে চিকিৎসা কর্যক্রম ব্যহত হবে।
ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক ও জেলা করোনা নিয়ন্ত্রণ কমিটির আহ্বায়ক অতুল সরকার বলেন, প্রেশনে বদলি করা ওই চিকিৎসকদের গুতুত্ব তুলে ধরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবের কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আশা করছি এ সিদ্ধান্ত রদ করা হবে। আমরা সে সিদ্ধান্ত শোনার প্রতীক্ষায় আছি।

আরও পড়ুন...

‘ফোয়াদ ভাই দাঁড়ান, আমরা ফরিদপুরের ডিবি’

নিজস্ব প্রতিবেদক # ‘ফোয়াদ ভাই দাঁড়ান, আমরা ফরিদপুরের ডিবি, আমাদের সঙ্গে যেতে হবে। কথাগুলো শোনার …

সাবেক এলজিআরডি মন্ত্রীর এপিএস ফোয়াদ গ্রেফতার

বিশেষ প্রতিবেদক। দুই হাজার কোটি টাকা পাচার মামলার চার্জসিটভুক্ত আসামী, সাবেক এলজিআরডি মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার …