18 Agrohayon 1427 বঙ্গাব্দ বুধবার ২ ডিসেম্বর ২০২০
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » নগরকান্দা » নগরকান্দায় ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব মিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী

নগরকান্দায় ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব মিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী

বিশেষ প্রতিবেদক ।
ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের দক্ষিন কাইচাইল গ্রামের মৃত মনসুর মিয়ার পুত্র মোঃ ইয়াকুব মিয়া মিথ্যা তথ্য প্রদান করে এবং জালিয়াতির মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয়দের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের কাছে আবেদন জানিয়েছেন। এদিকে, ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসকের তরফ থেকে ইউএনওকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।
স্থানীয় এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, ইয়াকুব মিয়া ভুয়া তথ্য প্রদান করে এবং অর্থের বিনিময়ে নিজেকে মুক্তিযোদ্ধা বানিয়ে নেন। অথচ তার পিতা মনসুর মিয়া স্বাধীনতা বিরোধী ছিলেন। তিনি এলাকার শান্তি কমিটির অন্যতম সদস্য ছিলেন। ইয়াকুব মিয়া কখনোই মুক্তিযুদ্ধ করেননি। তার পুরো পরিবারটিই স্বাধীনতা বিরোধী ছিল। জানাগেছে, ইয়াকুব মিয়া ১৯৭৫ সালে সরকারী এম এন একাডেমী স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে তৃতীয় বিভাগে পাশ করে। স্কুলের ভর্তির রেজিস্টারে তার বয়স লেখা রয়েছে ১২ ফেব্রয়ারি ১৯৬০। এ বিষয়ে এম এন একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মোঃ বেলায়েত হোসেন মিয়া জানান, ভর্তি রেজিস্টার হতে দেখা যায়, ইয়াকুব মিয়ার জন্ম তারিখ ১২ ফেব্রয়ারি ১৯৬০। যদি সে মিথ্যা তথ্য প্রদান করে থাকে তাহলে সেটি বড় ধরনের অপরাধ। এদিকে, মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার জন্য ইয়াকুব মিয়া জালিয়াতির আশ্রয় নেন বলে অভিযোগ উঠেছে। মিথ্যা তথ্য প্রদান করে জাতীয় পরিচয় পত্রে তার জন্মের তারিখ দেয়া হয়েছে ১২ ফেব্রয়ারি ১৯৫৪। স্থানীয়দের অভিযোগ, শুধুমাত্র মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার জন্যই সে তার বয়স নিয়ে জালিয়াতি করে জাতীয় পরিচয় পত্র করেছে। এছাড়া সে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডারকে ম্যানেজ করে মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম উঠিয়েছে। নিজের পরিবারকে স্বাধীনতা বিরোধী কলংকমুক্ত করতে এবং সরকারী সুবিধা নিতে জালিয়াতির মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা বনেছেন। সম্প্রতি, ইয়াকুব মিয়া একটি হত্যা মামলার আসামী হয়ে পলাতক রয়েছেন। নগরকান্দা উপজেলার কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা জানান, যেভাবে ইয়াকুব মিয়াকে মুক্তিযোদ্ধা বানানো হয়েছে তা নজীরবিহিন। সাবেক একজন কমান্ডার অর্থের বিনিময়ে অনেককেই মুক্তিযোদ্ধা বানিয়েছেন। তারই একজন ইয়াকুব মিয়া। ইয়াকুব মিয়া কখনোই মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেননি এবং তার পুরো পরিবারটি ছিল স্বাধীনতা বিরোধী। কাইচাইল গ্রামের একাধিক ব্যক্তির অভিযোগ, কোন প্রকার যাচাই-বাছাই না করে একজন অমুক্তিযোদ্ধাকে কিভাবে মুক্তিযোদ্ধা বানানো হলো তা আমাদের বোধগম্য নয়। যাচাই-বাছাই করে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী করেন তারা। একই সাথে ইয়াকুব মিয়াসহ যারা অবৈধভাবে মুক্তিযোদ্ধা বানিয়েছেন তাদেরও আইনের আওতায় আনার দাবী তাদের।
এদিকে, জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব মিয়ার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করতে নগরকান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।
অভিযোগের বিষয়ে ইয়াকুব মিয়ার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। তার পরিবারের স্বজনেরা জানান, গ্রামের একটি হত্যা মামলার আসামী হওয়ায় সে এলাকায় নেই।
নগরকান্দা ইউএনও জেতী প্রুু জানান, এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকের তরফ থেকে সোমবার চিঠি পাওয়া গেছে। তদন্ত করে অভিযোগ প্রমানিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আরও পড়ুন...

নগরকান্দায় ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে দুই শ্রমিক নিহত

বিশেষ প্রতিবেদক। ফরিদপুরে ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে দুই শ্রমিক নিহত হয়েছে। শুক্রবার দুপুর ২টা ৩৫ …

সালথায় মাদক ব্যবসায়ী তারেক মোল্যা পুলিশের হাতে আটক

সালথা (ফরিদপুর) সংবাদদাতা । ফরিদপুরের সালথায় তারেক মোল্যা (৩২) নামে একাধিক মাদক মামলার এক আসামীকে …