10 Kartrik 1427 বঙ্গাব্দ সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০
Home » এক্সক্লুসিভ » ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র সাংসদ নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা

ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র সাংসদ নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা

কামরুজ্জামান সোহেল।
ফরিদপুর-৪ (ভাঙ্গা-সদরপুর-চরভদ্রাসন) আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সনের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের দায়ে মামলা করেছে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে বাদী হয়ে চরভদ্রাসন থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন ফরিদপুর জেলা নির্বাচন অফিসের সিনিয়র কর্মকর্তা মোঃ নওয়াবুল ইসলাম। মামলায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বিধিমালা-২০১৩ ও উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরন) বিধিমালা-২০১৬ অনুযায়ী নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মামলার এজাহারে অনুরোধ জানানো হয়েছে। আদালতে এ মামলার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কথা জানান স্বতন্ত্র এমপি মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন। আর চরভদ্রাসন থানার ওসি নাজনীন খানম বলেছেন, মামলাটি তদন্ত করে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
মামলার আর্জিতে বাদী নির্বাচন কর্মকর্তা নওয়াবুল ইসলাম জানান, গত ১০ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচনে কেন্দ্রভিত্তিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিযুক্ত করায় জেলা প্রশাসক অতুল সরকারকে মোবাইল ফোন করে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন কৈফিয়ত তলব ও সমর্থিত প্রার্থী পরাজিত হলে মহাসড়ক অবরোধ সহ নানা প্রকার ভয়ভীতি প্রদর্শন ও অশোভন আচরণ করেন। একইসাথে নির্বাচনের দিনে একটি ভোট কেন্দ্রের বুথের সামনে জাল ভোট দেয়া ও ধুমপান করার সময় একজন পোলিং এজেন্টকে আটকের পর চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন সুলতানা, ভাঙ্গার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল আমিন ও কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেদেরকে সুস্থ্য মানসিকতাসম্পন্ন মানুষের পক্ষে উচ্চারণ অনুপযোগী অত্যন্ত অশালীন ভাষায় গালিগালাজ, ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং হুমকি দেন বলেও অভিযোগ আনা হয়।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ নওয়াবুল ইসলাম জানান, নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সনের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরন লঙ্ঘনের অভিযোগে মামলা দায়েরের কথা বলা হয়। সে মোতাবেক মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।
চরভদ্রাসন থানার ওসি নাজনীন খানম বলেন, এমপি মুজিবুর রহমান চৌধুরীর বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
মামলার বিষয়ে সাংসদ মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন জানান, মামলার বিষয়টি তিনি জেনেছেন। এ বিষয়ে তিনি আদালতে লড়বেন বলে জানান।
গত ১০ অক্টোবর ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাফেজ মোঃ কাউসারকে সমর্থন করেন ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন। নির্বাচনের সময় এমপি নিক্সন চৌধুরী চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন সুলতানাকে ফোন করে তার এক কর্মীকে আটকের বিষয়ে জানতে চান এবং ভাঙ্গা থানার এস্যিলান্ডকে উদ্দেশ্য করে গালাগাল করেন। এছাড়া নির্বাচনের দিন রাত সাড়ে ৮টার দিকে চরভদ্রাসন উপজেলা আওয়ামী লীগের অফিসের সামনে সমাবেশে নিক্সন চৌধুরী জেলা প্রশাসক অতুল সরকারকে উদ্দেশ্য করে বক্তৃতা করেন। এ দুটি বিষয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। এরই প্রেক্ষিতে গত বুধবার ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে ব্যাখ্যা প্রদান করেন সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান চৌধুরী। সেসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, চরভদ্রাসনের ইউএনও’র সাথে তার ‘ফোনালাপ’ সুপার এডিট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছাড়া হয়েছে এবং ইউএনও’র সাথে তার কথোপকথন মিথ্যা। তাছাড়া তিনি বলেন, তার বিরুদ্ধে মামলা হলে, আচরনবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ডিসির’র বিরুদ্ধেও মামলা হবে। এদিকে, ফরিদপুরের সাংবাদিকদের কাছে ফোনালাপের ঘটনা সত্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যা প্রকাশ হয়েছে তার দাঁড়ি, কমা পর্যন্ত ঠিক আছে বলে দাবী করেন চরভদ্রাসন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেসমিন সুলাতানা।
এদিকে, যে ব্যক্তিকে নিয়ে ইউএনওকে ফোনে অশ্লীল ভাষায় গালাগাল করেছেন এমপি নিক্সন চৌধুরী সেই ব্যক্তিকে চাকুরী থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তার নাম এস এম লুৎফর রহমান রানা। সে মাদারীপুর জেলার কালকিনি পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী হিসাবে কর্মরত ছিলেন। তার বিরুদ্ধে সরকারী চাকুরী বিধিমালা অমান্য করে নির্বাচনে একজন প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট হওয়া ও কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের সাথে অসদাচরন, জাল ভোট প্রদানের চেষ্টার অভিযোগ এনে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বুধবার স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় থেকে সাময়িক বরখাস্তের চিঠি পাঠানো হয়। ফরিদপুরের জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করে এসিল্যান্ড আল আমিন বলেন, এস এম লুৎফর রহমান মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী। সরকারী চাকুরীজীবি হয়েও তিনি উপজেলা পরিষদের উপ নির্বাচনে জাল ভোট দেবার চেষ্টা করেন ও একজন প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট ছিলেন। নির্বাচনের দিন চরঅযোদ্ধা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের সামনে সন্দেহজনক ভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তার আচরন সন্দেহজনক হওয়ায় এবং নির্বাচনের পরিবেশ ঠিক রাখতে তাকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়। এসময় তিনি সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান চৌধুরীকে ফোন করে কথা বলেন। পরক্ষনেই সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান চৌধুরী ধুত ব্যক্তিকে ছেড়ে দিতে বলেন। পরবর্তীতে চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কে ফোন করে তাকে নিয়ে গালাগাল করেন। পরবর্তীতে এটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।
জেলা প্রশাসক এস এম লুৎফর রহমানের বিষয়টি উর্ধ্বতন কতৃপক্ষকে জানালে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের উপ সচিব ফারুক হোসেন সাক্ষরিত এক চিঠিতে এস এম লুৎফর রহমানকে চাকুরী থেকে সাময়িক বরখাস্তের কথা জানান।

আরও পড়ুন...

ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে খেলাঘর

কন্ঠ রিপোর্ট ফরিদপুরে শিশু ও নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে খেলা …

শোলাকুন্ডু কেরামতিয়া মাদ্রাসায় নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

কন্ঠ রিপোর্ট # ফরিদপুর সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের তাম্বুল খানায় অবস্থিত শোলাকুন্ডু কেরামতিয়া দাখিল মাদ্রাসায় …