5 Kartrik 1427 বঙ্গাব্দ বুধবার ২১ অক্টোবর ২০২০
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » ফরিদপুর সদর » নেত্রীর সাহসী সিদ্ধান্তে দলে স্বস্তি ফিরেছে – শামীম হক

নেত্রীর সাহসী সিদ্ধান্তে দলে স্বস্তি ফিরেছে – শামীম হক

ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি শামীম হক বলেছেন, জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়োপযুগী সাহসী সিদ্ধান্তের কারনে বড় ধরনের বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগ। দুবৃর্ত্ত ও হাইব্রিডদের হাত থেকে দলকে বাঁচাতে জননেত্রী যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা দেশের সর্বস্তরের মানুষ সাধুবাদ জানিয়েছেন। ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন গুলোকে যেভাবে একটি অশুভ চক্র কুক্ষিগত করে রেখেছিল তা ছিল রীতিমতো ভয়াবহ। দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকা দুর্বৃত্তায়নের কবল থেকে দলকে মুক্ত করায় আওয়ামী লীগসহ স্বাধীনতা স্বপক্ষের শক্তি তথা ফরিদপুরবাসী অসম্ভব রকম খুশি। ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের বিগত দিনের রাজনীতির কথা বলতে গিয়ে শামীম হক বলেন, বিগত কয়েক বছর ধরে আওয়ামী লীগের পরীক্ষিত নেতা-কর্মীরা রাতে ঘুমাতে যাবার আগে ভাবতো, ‘যদি ঘুম ভাঙ্গার পর দেখা যেতো এ চক্রটির ক্ষমতা শেষ হয়ে গেছে, তাহলে তারা মরেও শান্তি পেতেন’। অনেকেই বলতো, এ যন্ত্রনা শেষ হবে কবে। হাইব্রিডদের দাপট আর অসম্ভব রকম ক্ষমতার প্রভাব খাটানোর কারনে দলের সিনিয়র নেতারা রীতিমতো রাজনীতি ছেড়ে নির্বাসনে চলে গিয়েছিলেন। দলের ত্যাগী, পরীক্ষিত ও পোঁড় খাওয়া নেতাদের উপর একের পর এক হামলা, মামলা, নির্যাতন আর অপমান-লাঞ্ছনার কারনে অনেকেই রাজনীতি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন। জীবন বাঁচানোর তাগিদে অনেকেই ফরিদপুর ছেড়ে ঢাকায় অবস্থান নিতে বাধ্য হন। শামীম হক আরো বলেন, বর্তমানে দলে দুর্নীতি বিরোধী যে শুদ্ধি অভিযান চলছে তার একক কৃতিত্ব জননেত্রী শেখ হাসিনার। তার দিক নির্দেশনায় রাহুমুক্ত হয়েছে ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন গুলো। শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারন সম্পাদক আটক রয়েছেন। তাদের দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। বহিস্কারের তালিকায় রয়েছেন অনেকেই। ইতোমধ্যে যুবলীগের আহবায়ক কমিটি বাতিল করা হয়েছে। বহিস্কার করা হয়েছে ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারন সম্পাদককে। শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগসহ সহযোগী সংগঠন গুলোতেও হাইব্রিডমুক্ত করা হবে। ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের কমিটির মেয়াদ শেষ হচ্ছে এ বছরের নভেম্বর মাসে। যারা রাজপথে থেকে লড়াই-সংগ্রাম করেছেন, যাদের নামে কোন কলঙ্ক নেই, তারাই নেতৃত্বে আসুক সেটাই চায় ফরিদপুরবাসী। কেননা একটি অশুভ চক্র যেভাবে জেলা আওয়ামী লীগকে কলঙ্কিত করেছে সেই বদনাম ঘোচাতে হলে সঠিক নেতৃত্ব আসতে হবে। আর সেটাই এবার করবেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। করোনা ও বন্যাকালীন সময়ে আওয়ামী লীগের তরফ থেকে কি কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে শামীম হক বলেন, শুধু করোনা এবং বন্যাই নয়, বিভিন্ন দূর্যোগে জেলা আওয়ামী লীগ সব সময়ই জনগনের পাশে থেকেছে। আওয়ামী লীগের পরিবর্তিত পরিস্থিতির মধ্যেও করোনা এবং বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাঁড়িয়েছে। আমি আমার নিজের পক্ষ থেকে এবং দলের পক্ষ থেকে করোনা, বন্যা ও নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ ২৫শ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেছি। এছাড়া শোকদিবসের অনুষ্ঠান সংক্ষিপ্ত করে সেই টাকা দিয়ে ৩ হাজার পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, চিনি, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে। করোনা থেকে মানুষকে মুক্ত রাখতে প্রচারনাও চালানো হয়েছে।

আরও পড়ুন...

ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে খেলাঘর

কন্ঠ রিপোর্ট ফরিদপুরে শিশু ও নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে খেলা …

শোলাকুন্ডু কেরামতিয়া মাদ্রাসায় নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

কন্ঠ রিপোর্ট # ফরিদপুর সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের তাম্বুল খানায় অবস্থিত শোলাকুন্ডু কেরামতিয়া দাখিল মাদ্রাসায় …