26 Srabon 1427 বঙ্গাব্দ সোমবার ১০ অগাস্ট ২০২০
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » ফরিদপুর সদর » ফরিদপুরে ‘সাদ পরিবহন’ চলাচলে বাঁধা প্রদানের অভিযোগ

ফরিদপুরে ‘সাদ পরিবহন’ চলাচলে বাঁধা প্রদানের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিবেদক। ফরিদপুর জেলা বাস মালিক গ্রুপের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সিদ্দিকী কামরুলের মালিকানাধীন সাদ পরিবহন চলাচলে বাঁধা প্রদানের অভিযোগ উঠেছে। ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আলফাডাঙ্গাগামী সাদ পরিবহনের একটি বাস শহরের রাজবাড়ী রাস্তার মোড়ে আটকে দেয়া হয়। এরপর বাস থেকে সকল যাত্রীদের নামিয়ে দেয়া হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফরিদপুর জেলা বাস মালিক গ্রুপের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সিদ্দিকী কামরুল অভিযোগ করে বলেন, তার মালিকানাধীন সাদ পরিবহনের ৮টি ট্রিপ চলাচল করতো বিভিন্ন রুটে। ২০১৪-১৬ সালে নির্বাচিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক থাকা অবস্থায় ফরিদপুরের আলোচিত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ সাজ্জাদ হোসেন বরকত ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে এবং অবৈধ অস্ত্রের মাধ্যমে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে সাধারন মালিকদের ভয়ভীতি দেখিয়ে ও তাদের জিম্মি করে বাস মালিক গ্রুপ থেকে অন্যায় ভাবে আমাকে সরিয়ে দেয়। রাতের আঁধারে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে বাস মালিক গ্রুপের সকল মালামাল ও সম্পদ পূর্বের কার্যালয় থেকে লুট করে নিয়ে যায়। এরপর অস্ত্রের মুখে ভয়ভীতি দেখিয়ে, কমিটির অনেকের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও হয়রানীমূলক মামলা এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গুরুতর অসুস্থ্য সভাপতিকে জিম্মি করে বৈধ ভাবে নির্বাচিত সদস্যদের মিথ্যা অজুহাতে পদত্যাগে বাধ্য করে। এরপর ২০১৫ সালের ১১মার্চ শহরের একটি হোটেলে তাদের নিজস্ব এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য একটি সাধারন সভা তলব করে। সভায় তারা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে সাধারন সদস্যদের মাঝে ভীতির সঞ্চার করে একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করে। যার প্রধান হয় বরকত নিজেই। পরবর্তীতে তারা আমার মালিকানাধীন সাদ পরিবহনের আলফাডাঙ্গা-ঢাকা রুটের সকল ট্রিপ অন্যায়ভাবে জবরদখল করে নেয়। বন্ধ করে দেয়া হয় আমার পরিবহন। সম্প্রতি, আইন শৃংখলারক্ষাকারী বাহিনীর বিশেষ অভিযানে ধরা পড়ে বরকত ও তার ভাইসহ তার কয়েক সহযোগী। কিন্তু বরকতের নিয়ন্ত্রনাধীন বাস মালিক গ্রুপ এখনো রাহুমুক্ত হয়নি। বরকতের নির্দেশে যে কমিটি হয়েছিল সেই কমিটির সাধারন সম্পাদক সম্পূর্ন অবৈধভাবে আমার মালিকানাধীন সাদ পরিবহন চলাচলে বাঁধা প্রদান করে। যা বাস মালিক গ্রুপের নীতিমালা পরিপন্থি। নানা মিথ্যা অভিযোগ এনে বাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। এরই অংশ হিসাবে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আলফাডাঙ্গাগামী সাদ পরিবহনটি চলাচলে বাঁধা প্রদান করে। কামরুজ্জামান কামরুল আরো জানান, বর্তমান কমিটি বাতিল করে পুনরায় স্বচ্ছ নির্বাচনের মাধ্যমে কমিটি গঠন করার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহবান জানাই। এছাড়া সাদ পরিবহন চলাচলে যারা বাঁধা প্রদান করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনেরও দাবী জানাই। এ বিষয়ে জেলা বাস মালিক গ্রুপের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আলী আহসান বণি বলেন, সাদ পরিবহনের কোন ট্রিপ নেই। ঢাকা-আলফাড্ঙাা ট্রিপ গুলো মালিক সমিতির নিজস্ব ট্রিপ। সাদ পরিবহন অবৈধভাবে চলায় তা বাঁধা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সিদ্দিকের কাছে মালিক সমিতি ৩৩ লাখ ৩৩ হাজার ৩শ ৩৩ টাকা পাওনা রয়েছে। সেই টাকা চেয়ে তার কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন...

বিএনপি নেতা মিনানের সুস্থ্যতায় দোয়া কামনা

বিশেষ প্রতিবেদক। ফরিদপুর জেলা বিএনপির বিলুপ্ত কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান মিনান …

সাহিত্য পরিষদের উদ্যোগে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

ফরিদপুর সাহিত্য পরিষদের উদ্যোগে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৯ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার …