10 Kartrik 1427 বঙ্গাব্দ সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » ফরিদপুর সদর » মশার যন্ত্রনায় অতিষ্ঠ পৌরবাসী, নিজ উদ্যোগে মশক নিধন শুরু

মশার যন্ত্রনায় অতিষ্ঠ পৌরবাসী, নিজ উদ্যোগে মশক নিধন শুরু

সোহাগ জামান #
করোনা ভাইরাস আতঙ্কের মধ্যেই নতুন করে দেখা দিয়েছে ডেঙ্গু আতঙ্ক। গত কয়েকদিন ধরে ফরিদপুর শহরের সর্বত্র বেড়েছে মশার উপদ্রব। দিনের বেলায়ও রেহাই মিলছেনা মশার কবল থেকে। বর্তমানে মশার উপদ্রব নিয়ে ফরিদপুর পৌরবাসী দিশেহারা অবস্থায় রয়েছে।। শীত মৌসুম শেষ হতে না হতেই ফরিদপুরে এবছর মশার উপদ্রব ক্রমেই বেড়েই চলেছে। পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে মশার আক্রমনে ঘুমনেই পৌরবাসীর। শহরের ঝিলটুলী, নিলটুলী, পূর্বখাবাসপুর, আলিপুর, কমলাপুর, চরকমলাপুর, টেপাখোলা, দক্ষিন ঝিলটুলী, গোয়ালচামট, রথখোলা, অম্বিকাপুর অত্যন্ত ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা। আর এসব এলাকার বিভিন্ন পুকুর, ডোবা, ড্রেনসহ অর্ধ শতাধিক স্থানে এখন মশা তৈরীর কারখানায় রুপান্তরিত হয়েছে।
সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শহরের ঝিলটুলী জুবলি ট্যাংক পুকুরের একপাশে পানি আটকে রেখে গোসলের জন্য ঘাটলা তৈরীর কাজ চলছে। অথচ দীর্ঘদিন পানি আটকে রাখার ফলে সেখান মশার লাভা থেকে লাখ লাখ মশা জন্ম নিচ্ছে। তাছাড়া শহরের বিভিন্ন ড্রেনে দীর্ঘদিন পানি আটকে থেকে সেখানেও যেন মশার অভয়ারন্যে পরিনত হয়েছে। চলতি বর্ষা মৌসুমে আবারও মশার উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় পরেও এখনও মশা নিধনের কার্যকরী কোন পদক্ষেপ নেয়নি পৌর কতৃপক্ষ।
থানার মোড়ের ব্যবসায়ী তারিকুল ইসলাম বলেন, মশা নিধনের জন্য পৌরসভার লোকজন ব্যাটারী চালিত ভ্যানে করে ফগার মেশিন দিয়ে রাস্তার উপরে ১দিন ঔষধ দিয়ে চলে গেছে।এভাবে ফাকা রাস্তায় ঔষধ দিয়ে তো কোন লাভ নাই। ঔষধ দিতে হবে ড্রেন, বিভিন্ন পুকুরে। অথচ তা না করে রাস্তা দিয়ে একদিন ফগার মেশিনের ধোঁয়া দিয়ে চলে গেছে। এভাবে কোন মশা মারা সম্ভব না।
শহরের পূর্বখাবাসপুরের মজনু শেখ বলেন, গত বছরও আমাদের এলাকায় কোন মশা নিধনের কাংক্রম চালয়নি পৌরসভা। এবছর মশা কামড়ে বাড়িতে টিকতে পারছি না ।কিন্তু এখন পর্যন্ত পৌরসভার লোকজন কোন মশা নিধনের ব্যবস্থা গ্রহন করেনি। করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গু রোগ ছড়িয়ে পরলে তো এবার নিস্তার নাই।
এদিকে, মশার হাত থেকে বাঁচতে নিজ উদ্দ্যোগে মশা নিধনের কার্যক্রম চালাচ্ছেন বিভিন্ন ওয়ার্ডের স্বেচ্ছাসেবীরা। পৌর শহরের ১১নং ওয়ার্ডের আলিপুর এলাকার মানুষদের মশার উপদ্রব হতে বাচাঁতে নিজ উদ্দ্যোগে মানুষে বাড়ি বাড়ি গিয়ে পুকুর, ডোবা,খাল, ঝোপ-ঝাড়ে মশা নিধনের কার্যক্রম চালাচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটি।
স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোক্তা জাবির শফি দিনার জানান, গত বছর ডেঙ্গু মশার ভয়াবহতা দেখেছি। অনেক মানুষ ডেঙ্গু মশার কামড়ে মারা গেছে। এ বছরও মশার উপদ্রব বেড়ে গেছে আর এই ডেঙ্গু মশার হাত থেকে রক্ষার্থে বিভিন্ন মহল্লায় গত ৬ মাস ধরে মশা নিধনের কার্যক্রম চালাচ্ছেন। এসময় তিনি আরো জানান তাদের মশা নিধনের এ কার্যক্রম পুরো বর্ষা মৌসুম জুড়েই চলব।
এদিকে, পৌর মেয়র শেখ মাহাতাব আলী মেথু বলেন, আমরা শহরকে পরিষ্কার রাখার জন্য কাজ করছি। এ বিষয়ে জনসচেতনতার জন্য মাইকিং চলছে। তাছাড়া ফগার মেশিন দিয়ে মশা নিধনের জন্য বিভিন্ন ওয়ার্ডে ঔষধ দেয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন...

ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে খেলাঘর

কন্ঠ রিপোর্ট ফরিদপুরে শিশু ও নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে খেলা …

শোলাকুন্ডু কেরামতিয়া মাদ্রাসায় নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

কন্ঠ রিপোর্ট # ফরিদপুর সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের তাম্বুল খানায় অবস্থিত শোলাকুন্ডু কেরামতিয়া দাখিল মাদ্রাসায় …