12 Ashin 1427 বঙ্গাব্দ রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » ফরিদপুর সদর » ফরিদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৪জনসহ নিহত-৬

ফরিদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৪জনসহ নিহত-৬

বিশেষ প্রতিবেদক #
ফরিদপুরের সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মল্লিকপুর এলাকায় বাস-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই ৬ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে ১ জন। সোমবার ভোর সাড়ে ছয়টার দিকে এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহতদের মধ্যে ৪ জন একই পরিবারের সদস্য। করিমপুর হাইওয়ে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা খুলনাগামী মামুন পরিবহনের একটি বাস বিপরীত দিক থেকে ফরিদপুরের বোয়ালমারী থেকে আসা কক্সবাজারগামী মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাসটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই নিহত হয় মাইক্রোবাসের ৬ যাত্রী। এদের মধ্যে একই পরিবারের ৪ জন রয়েছে। নিহতেরা হলেন, ফরিদপুর জেলা ওলামা দলের সভাপতি ডা. শরিফুল ইসলাম (৪২), তার কন্যা তাবাসসুম (৯), শ্যালিকা জাকিয়া সুলতানা আতিয়া (১৪), ভাগনি তানজিলা (২২), মাইক্রোবাসের ড্রাইভার নাহিদ হোসেন (২৬), পুলিশের এসআই ফারুক হোসেন (৪২)। আহত ডা. শরিফুল ইসলামের স্ত্রী রিম্মিকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনার পর করিমপুর হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগীতায় লাশ গুলো উদ্ধার করে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুম রেজাসহ পুলিশের উধ্বর্তন কর্মকর্তারা। এসময় তারা নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান। একই সাথে তারা দুর্ঘটনার জন্য দায়ী বাস চালককে আইনের আওতায় এনে বিচারের কথা বলেন। দুর্ঘটনার পর মামুন পরিবহনের চালক পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও ঘাতক বাসটিতে আটক করেছে পুলিশ। নিহতদের লাশ গুলো উদ্ধার করে করিমপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়িতে রাখা হয়। পরে আইনী প্রক্রিয়া শেষে লাশ গুলো পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহত ডা. শরিফুল ইসলাম, তাবাসসুম, জাকিয়া সুলতানা আতিয়া ও তানজিলার বাড়ী জেলার বোয়ালমারী উপজেলার ছোলনা গ্রামে। আর ঢাকা হেড কোয়ার্টারে চাকুরীরত পুলিশের এসআই ফারুক হোসেনের বাড়ী জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলায় আর মাইক্রোবাসের চালক নাহিদের বাড়ী নড়াইল জেলায়।
নিহত ডা. শরিফুল ইসলামের ভাই হান্নান জানান, তার ভাই ডা. শরিফুল ইসলাম পরিবারের স্বজন ও এক বন্ধুকে নিয়ে ভোরে নিজস্ব মাইক্রোবাস নিয়ে কক্সবাজারে আনন্দ ভ্রমনের জন্য যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় তার ভাইসহ ৬ জন নিহত হন। পরিবারের সদস্যদের হারিয়ে তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।
নিহতদের লাশ বোয়ালমারীতে নেয়া হলে সেখানে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়। হাজারো মানুষ ভীড় করে তাদের প্রিয় নেতা ও তার পরিবারের সদস্যদের লাশ দেখতে। এসময় কান্নায় ভেঙ্ড়ে পড়েন সেখানে উপস্থিত হাজারো মানুষ।
করিমপুর হাইওয়ে পুলিশের এএসপি সিরাজুল ইসলাম জানান, দ্রুতগামী বাসটি মাইক্রোবাসটিতে ধাক্কা দিলে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। ঘন কুয়াশার কারনেই এ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে বলে তিনি মনে করেন। এ ঘটনায় বাসটিকে আটক করা হয়েছে। তিনি বলেন, ঘাতক বাসটিতে কোন যাত্রী ছিলনা। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুুতি চলছে।

আরও পড়ুন...

বিএনপি নেতা বাবুলের সুস্থ্যতা কামনায় দোয়া

কামরুজ্জামান সোহেল।  বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির ঢাকা বিভাগীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক, ছাত্রদল …

আদালদের নিষেধাজ্ঞা থাকাবস্থায় ঝিলটুলীতে দোকানঘর নির্মাণের চেষ্টা

বিশেষ প্রতিবেদক। ফরিদপুরের ঝিলটুলীর ভরাট হয়ে যাওয়া ঝিলপাড়ে আদালদের নিষেধাজ্ঞা থাকা অবস্থাতেই দোকান ঘর নির্মাণের …