24 Chaitro 1426 বঙ্গাব্দ বুধবার ৮ এপ্রিল ২০২০
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » সদরপুর » কাজী জাফরউল্লাকে নিক্সন চৌধুরীর কড়া হুমকি

কাজী জাফরউল্লাকে নিক্সন চৌধুরীর কড়া হুমকি

ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মুজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরী বলেছেন, হত্যার মদতদাতা হিসাবে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফরউল্লাহকে আইনের মাধ্যমে একদিন ফাঁসিতে ঝোলানো হবে। তিনি বলেন, অনেক ধৈর্য্য ধরেছি। আর ধৈর্য্য ধরবোনা। আমার আর কোন নেতা-কর্মীর শরীর থেকে রক্ত ঝড়ানো হলে আপনি জাফরউল্লাহ সাহেব মনে রাখবেন, আপনার শরীফ থেকে রক্ত ঝড়িয়ে দেখিয়ে দেবো এটা ফরিদপুরের মাটি। এই মাটিতে কোন রাজাকার, যুদ্ধাপরাধী, টাউট-বাটপাড়ের স্থান নেই।
বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে ফরিদপুরের সদরপুরের চর মানাইর ইউনিয়নের চর গজারিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ফল ব্যবসায়ী আতাহার মোল্লার হত্যাকারীদের বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ সমাবেশে মুজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরী এসব কথা বলেন।
সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরী সমাবেশে আগতদের উদ্দেশ্য করে বলেন, জাফরউল্লাহ সাহেব আমি এখানে উপস্থিত মা-চাচীদের সাক্ষি রেখে আপনাকে চ্যালেঞ্জ করলাম। আতাহার মোল্লার খুনিদের কাউকে আপনি বাঁচাতে পারবেন না। আপনার যত ক্ষমতা আছে আপনি ব্যবহার করতে পারেন। হত্যাকারীদের ফাঁসির দড়িতে ঝুলতেই হবে। যদি আপনি তাদের বাঁচাতে পারেন তাহলে আমি হাতে চুড়ি পড়ে এখান থেকে চলে যাবো। নিক্সন চৌধুরী হুশিয়ারী উচ্চারন করে বলেন, যদি খুঁনিদের ধরা না হয় তাহলে তিন থানার জনগনকে সাথে নিয়ে দক্ষিনাঞ্চল চিরদিনের জন্য অচল করে দেবো। কাজী জাফরউল্লাহকে উদ্দেশ্য করে নিক্সন চৌধুরী বলেন, আপনার মতো প্রেসিডিয়াম সদস্য নিক্সন চৌধুরী পাত্তাও দেয় না। যেদিন দাবোড় দেবে সেদিন পদ্মা নদী পাড় হবার সময় পাবেন না। নিক্সন চৌধুরী আরো বলেন, কাজী জাফরউল্লাহ যেদিন প্রেসিডিয়াম সদস্য হয়েছেন সেদিনই আতাহারকে খুন করা হয়। প্রেসিডিয়ামের উপহার হিসাবে তিনি খুন দিয়ে বছর শুরু করেছেন। মানুষ হত্যা করে তিনি এখন সংবর্ধনা নিচ্ছেন। নিক্সন চৌধুরী আরো বলেন, আমি যখন ২০১৪ সালে নির্বাচন করি তখন তিনি প্রেসিডিয়াম সদস্য ছিলেন। গত নির্বাচনেও তিনি প্রেসিডিয়াম সদস্য ছিলেন। এবারও প্রেসিডিয়াম সদস্য হয়েছেন। কাজী জাফরউল্লাহ ওয়ান ক্লাসে ছিলেন এখনো ওয়ান ক্লাসেই রয়েছেন। প্রতিবছর ওয়ান ক্লাসে থেকে সংবর্ধনা নিচ্ছেন। তার লজ্জা হওয়া উচিত।
শাহ আলম মোল্ল্যার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, সদরপুর উপজেলার চেয়ারম্যান কাজী শফিকুর রহমান, ভাংগা উপজেলার চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেনসহ স্থানীয় এলাকাবাসী।
উল্লেখ্য,গত ২৩শে ডিসেম্বর বিকেলে আতাহার মোল্ল্যাকে নির্মম ভাবে কুপিয়ে আহত করে প্রতিপক্ষের লোকজন। মারাত্বক আহত অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পরদিন ভোরে মারা যায় আতাহার মোল্লা। এ ঘটনায় নিহতের ভাই শাহ আলম মোল্ল্যা বাদী হয়ে সদরপুর থানায় ১৫ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দয়ের করেন। মামলায় পুলিশ ১ আসামীকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে।

আরও পড়ুন...

সদরপুরে পূর্ব শৌলডুবি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত

সদরপুর প্রতিনিধি # ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের পূর্ব শৌলডুবী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া …

সদরপুরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

প্রভাত কুমার সাহা, সদরপুর # ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে মহান …