24 Agrohayon 1426 বঙ্গাব্দ সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯
Home » এক্সক্লুসিভ » ফরিদপুরে ব্রীজের রেলিং ভেঙ্গে বাস খাদে পড়ে নিহত ৮, অপর ঘটনায় ৩ জন নিহত

ফরিদপুরে ব্রীজের রেলিং ভেঙ্গে বাস খাদে পড়ে নিহত ৮, অপর ঘটনায় ৩ জন নিহত

সোহাগ জামান #
ফরিদপুরে মর্মান্তিক পৃথক তিনটি সড়ক দুর্ঘটনায় ১১ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে কমপক্ষে আরো ১৮ জন। আহতদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে। নিহতদের মধ্যে ৫জন পুরুষ ও ৩ জন মহিলা রয়েছে। প্রথম দুর্ঘটনাটি ঘটে শনিবার বেলা সোয়া দুইটার দিকে ফরিদপুরের ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ধুলদি নামক স্থানে। স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী, বাসযাত্রী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা থেকে কমফোর্ট লাইনের যাত্রীবাহী একটি বাস গোপালগঞ্জের পাটগাতি যাচ্ছিল। পথিমধ্যে ধুলদি ব্রীজের কাছে বিপরিত দিক থেকে আসা একটি মোটর সাইকেলকে চাপা দিয়ে বাসটি ব্রীজের রেলিং ভেঙ্গে নিচে পড়ে যায়। এতে বাসটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই বাসের ৫ যাত্রী নিহত হয়। দুর্ঘটনা পর স্থানীয় এলাকাবাসীর সহায়তায় ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ উদ্ধার অভিযান চালায়। আহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে মারা যায় আরো ৩ জন। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে সেখানে ছুটে যান জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা। দুর্ঘটনায় আহত কয়েকজনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের চিকিৎসকেরা। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৩ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলেন, বাসের সুপার ভাইজার হানিফ (৪৫), তার বাড়ী গোপালগঞ্জের কাশিয়ানিতে। নিহত ফারুক হোসেন (৫০) ও আসমা বেগম (২৯)। তাদের দুইজনের বাড়ী গোপালগঞ্জ সদরে। বাকিদের পরিচয় জানা যায়নি। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যাওয়া আহতদের চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল কতৃপক্ষ অবহেলা করেন বলে অভিযোগ করেন আহত রোগীরা। নিহতদের লাশ ফরিদপুর কোতয়ালী থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে নিহতদের পরিচয় সনাক্তে আঙ্গুলের ছাপ নেয়া হয়েছে। কোতয়ালী থানার ওসি এএফএম নাসিম জানান, নিহতদের পরিচয় সনাক্তে লাশের আঙুলের ছাপ নেয়া হয়েছে। নিহতদের লাশ সনাক্তের পর তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। ফায়ার সার্ভিসের উপ পরিচালম মমতাজউদ্দিন জানান, দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার পর উদ্ধার অভিযান চালায় তারা। নিহত ও আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। পুলিশের সহায়তায় বাসটি উদ্ধার করা হয়।
অন্যদিকে, বেলা সাড়ে তিনটার দিকে ফরিদপুরের নগরকান্দার তালমায় লোকাল বাসের চাপায় মারা যায় দুইজন। এ ঘটনায় মারাত্বক ভাবে আহত হয় আবুল সিকদার নামের এক পথচারী। ভাঙ্গা থেকে ছেড়ে আসা একটি লোকাল বাস ঘটনাস্থলে একটি অটোরিকশা ও কয়েকজন পথচারীকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে মারা যায় অটো রিকশার যাত্রী রেশমা বেগম (৪০) ও তার ছেলে রাজু (১৮)। অপরদিকে, সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে ধুলদি মুসলিম মিশন এলাকায় বাস চাপায় মোটর সাইকেলের এক আরোহী নিহত হয়েছে। তার পরিচয় জানা যায়নি।
ধুলদিতে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।
ফরিদপুরের পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান জানান, দুর্ঘটনার কারন সর্ম্পকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। সে মতে ব্যবস্থা নেয়া হবে। অন্যদিকে, জেলা প্রশাসক অতুল সরকার জানিয়েছেন, নিহতদের লাশ পরিবারের সদস্যদের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। নিহতদের পরিবারকে যথাসাধ্য আর্থিক সাহায্য দেয়া হবে।

আরও পড়ুন...

ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতির বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে সভা

ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেল ও ক্লাব সদস্য সাজ্জাদ হোসেন বরকতের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও …

ফরিদপুরে এনজিও নেত্রীর ২ বছরের কারাদন্ড

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এর দায়ের করা অর্থ আতœসাত মামলায় ফরিদা ইয়াসমিন নামের এনজিও নারী …