৪ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » নগরকান্দা » নগরকান্দায় আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে ভোটের মাঠে বিএনপি

নগরকান্দায় আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে ভোটের মাঠে বিএনপি

সোহেল জামান # শেষ মুহুর্তের প্রচারনা আর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ, হামলা, মামলার ঘটনায় ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায় বিরাজ করছে ভিন্নরকম পরিবেশ। একদিকে, নির্বাচনী আমেজ অন্যদিকে রয়েছে উত্তপ্ত পরিবেশ। উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিলেও নগরকান্দায় চিত্র পুরোপুরি ভিন্ন। দলের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা না মেনে দলের প্রভাবশালী নেতারা এখন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর প্রচারনায় মাঠ দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছেন। ফলে নগরকান্দার গোটা উপজেলাজুড়ে সবদলের নেতা-কর্মীরা নির্বাচনী প্রচারনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। নগরকান্দা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মোট চারজন প্রার্থী অংশ নিচ্ছেন এদের মধ্যে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান সরদার। দলীয় মনোনয়ন চেয়ে তা না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মাঠে রয়েছেন কাজী শাহ জামান বাবুল। বাবুল মাঠে থাকায় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। তাছাড়া সংসদ উপনেতার রাজনৈতিক প্রতিনিধি শাহদাব আকবর লাবু, এপিএস শফিউদ্দিন আহমেদ বিদ্রোহী প্রার্থী বাবুলের আনারস প্রতিকের প্রচারনায় অংশ নেয়ায় দলের বেশীর ভাগ নেতারাই চাপের মুখে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষেই থাকছেন। নগরকান্দা আওয়ামী লীগের দলীয় অফিসটিও ব্যবহার করা হচ্ছে বাবুলের আনারস প্রতিকের প্রচারনার কাজে। শুধু আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরাই নন, বিএনপির প্রভাবশালী নেতা-কর্মীদের মাঠে নামানো হয়েছে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বাবুলের পক্ষে। নগরকান্দা উপজেলা বিএনপির একাধিক নেতা ও সহযোগী সংগঠনের প্রায় সব নেতাই আঁতাত করে বাবুলের পক্ষে প্রচারনা চালাচ্ছেন। নামপ্রকাশ না করার শর্তে নগরকান্দা উপজেলা বিএনপির প্রথম সারির একনেতা জানান, যেহেতু বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেয়নি সেই হিসাবে আমরা আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে হারাতে চাই। তাছাড়া আমাদের নেতা-কর্মীদের নামে অসংখ্য মামলা রয়েছে। পুলিশ হয়রানী করে। এসব থেকে বাঁচতেই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার কৌশল গ্রহন করা হয়েছে। আরেকনেতা জানান, আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী মহল থেকে তাদের আশ্বস্থ করা হয়েছে বিএনপি যেসব নেতা-কর্মী আনারস প্রতিকের জন্য কাজ করবেন তাদের পুলিশী হয়রানী করা হবেনা। বিএনপির নেতা-কর্মীদের আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার কথা স্বীকার করে উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক সাইফুর রহমান মুকুল জানান, দলের বেশকিছু নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছে । ইতোমধ্যেই সেইসব নেতাদের আমরা মৌখিক ভাবে সতর্ক করেছি। তাতে কাজ না হলে আমরা দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহন করবো। এদিকে, আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী ও দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে বেশ কয়েকটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পাল্টাপাল্টি হামলা, ভাংচুর ও কুপিয়ে আহত করার ঘটনাও রয়েছে। এসব ঘটনা নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। সর্বশেষ সংসদ উপনেতার এপিএস আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী কাজী বাবুলের পক্ষে ভোট চাইতে গিয়ে রামনগরে লাঞ্ছিত হয়েছেন। তার গাড়ীর গ্লাসও ভেঙ্গে দেয় আরেকটি গ্রুপ। এ ঘটনা নিয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন নগরকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)। আওয়ামী লীগের প্রার্থী মনিরুজ্জামান সরদার, বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতিকের কাজী শাহ জামান বাবুল ছাড়াও এ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী রয়েছেন আরো দুইজন। এরা হলেন, সৌদিআরব বিএনপির সহ সভাপতি, মোটর সাইকেল প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী তালুকদার নাজমুল হোসেন, জাকের পার্টির খায়রুজ্জামান মোল্যা টিটু। এদের মধ্যে ত্রিমুখী লড়াই হবে বলে স্থানীয় ভোটারদের সাথে কথা বলে এমনই আভাস পাওয়া গেছে। এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৯ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ উপজেলায় মোট ভোটার হচ্ছে ১ লাখ ৪৩ হাজার ৪শ ৪৭ জন। আগামী ১৮ মার্চ দ্বিতীয় দফায় এ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

আরও পড়ুন...

ছাত্রলীগের কর্মকান্ডে অসন্তোষ আছে, কমিটি ভাঙ্গার সিদ্ধান্ত হয়নি: কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙ্গে দেয়ার ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কোনো সিদ্ধান্ত …

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

নানা বিতর্কিত কর্মকান্ডের জন্য ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়েছেন সংগঠনটির সাংগঠনিক সভাপতি …