৩ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » ফরিদপুর-৪ আসনের এমপির বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের তিন প্রার্থীর অভিযোগ

ফরিদপুর-৪ আসনের এমপির বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের তিন প্রার্থীর অভিযোগ

সোহেল জামান #
ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট কারচুপি, আচরনবিধি লঙ্ঘনসহ নানা অভিযোগ তুলেছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত তিন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। শনিবার বিকেলে ফরিদপুর প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ আনা হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত সদরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাডভোকেট শায়েদীদ গামাল লিপু। লিখিত বক্তৃতায় তিনি অভিযোগ করে বলেন, ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরী আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে আজেবাজে কথা বলে জনগনকে উস্কানী দিচ্ছেন। সাংসদ তার সমর্থিত প্রার্থীদের ভোট দিতে ভোটারদের প্রলুব্দ করছেন যা নির্বাচনী আচরনবিধির সুষ্পষ্ট লঙ্ঘন। তাছাড়া তিনি গত কয়েকদিন ধরে ফরিদপুর-৪ আসনের তিনটি উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গিয়ে তার সমর্থিত প্রার্থীকে পরিচয় করিয়ে দিয়ে ভোট চাইছেন। এছাড়া তিনি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের তার প্রার্থীও পক্ষে কাজ করতে চাপ সৃষ্টি করে চলেছেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত থাকা আওয়ামী লীগের নেতারা জানান, স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের তিন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীও বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালিয়ে বক্তৃতা-বিবৃতি দিচ্ছেন। এ বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট মহলকে জানানো হলেও কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি। ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আকরামুজ্জামান রাজা অভিযোগ করে বলেন, ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আওয়ামী লীগ প্রার্থীর দেয়া অভিযোগ আমলে না নিয়ে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যের পক্ষে কাজ করছেন। সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরীর নির্বাচনী আচরনবিধি অমান্যের বিষয়টি লিখিত ও মৌখিক ভাবে জানিয়েও কোন লাভ হয়নি। উপরন্তু ইউএনও বলেছেন, তিনি এ বিষয়ে কিছুই করতে পারবেন না। আওয়ামী লীগের নেতারা ইউএনওকে নির্বাচন সুষ্ঠ করতে প্রদক্ষেপ নেবার কথা বললে তিনি রেগে গিয়ে তাদের নানা কথা শুনিয়ে দেন এবং বলেন, আপনারা যা পারেন করতে পারেন। আমার কিছুই হবে না। আওয়ামী লীগের নেতারা সংবাদ সম্মেলন থেকে আল্টিমেটাম দিয়ে বলেন, রবিবার পর্যন্ত ইউএনওকে সময় দেয়া হলো, এরমধ্যে তিনি যদি কোন পদক্ষেন না নেন তাহলে তার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলবে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত থাকা চরভদ্রাসন, ভাঙ্গা ও সদরপুর উপজেলার আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা আসন্ন উপজেলা নির্বাচন সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ হওয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন। একই সাথে তারা স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যের নির্বাচনী আচরনবিধি ও প্রভাব কাটিয়ে ভোট কারচুপির বিষয়টি নিয়ে দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেখা করে বিস্তারিত জানাবেন বলেও উল্লেখ করেন।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সদরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী শায়েদীদ গামাল লিপু, ভাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী জাকির হোসেন, চরভদ্রাসন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী কাওসার আলী, ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাইফুর রহমান মিরন, সাধারন সম্পাদক আকরামুজ্জামান রাজা, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা ফকির আবদুস সাত্তার, এনামুল হক অপু, আনিসুর রহমান প্রমুখ।

আরও পড়ুন...

ছাত্রলীগের কর্মকান্ডে অসন্তোষ আছে, কমিটি ভাঙ্গার সিদ্ধান্ত হয়নি: কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙ্গে দেয়ার ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কোনো সিদ্ধান্ত …

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

নানা বিতর্কিত কর্মকান্ডের জন্য ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়েছেন সংগঠনটির সাংগঠনিক সভাপতি …