৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ শনিবার ১৫ জুন ২০১৯
Home » ফরিদপুরের সংবাদ » ফরিদপুর সদর » ফরিদপুর হবে উন্নত নগর- খন্দকার মোশাররফ হোসেন

ফরিদপুর হবে উন্নত নগর- খন্দকার মোশাররফ হোসেন

সুমন ইসলাম # ফরিদপুর-৩ (সদর) আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বিগত ১০ বছরে ফরিদপুর জেলায় অনেক উন্নয়ন হয়েছে। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে যে উন্নয়ন হয়নি, সেই উন্নয়ন হয়েছে গত ১০ বছরে। আসন্ন নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমাকে নির্বাচিত করলে ফরিদপুরকে সারাদেশের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ শহর বানানো হবে। মন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোমরপুর স্কুল মাঠের জনসভায় ফরিদপুরকে বিভাগ করার ঘোষনা দিয়েছেন। আগামীতে ফরিদপুরকে সিটি করর্পোরেশন বানানো হবে। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে ৭৫০ বেড থেকে ১৫শ শর্য্যায় উন্নীত করা হবে। একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে। একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করা হবে। এছাড়া ফরিদপুরের চরাঞ্চলের উন্নয়নে ব্যাপক কাজ হাতে নেয়া হবে। যাতে করে চর আর শহরের মধ্যে কোন পার্থক্য না থাকে। ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন শুক্রবার সন্ধ্যায় ফরিদপুরের অম্বিকাপুর ইউনিয়নের ভাষানচর প্রার্থমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত এক নির্বাচনী জনসভায় এসব কথা বলেন। অম্বিকাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বারী চৌধুরীর সভাপতিত্বে জনসভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক চৌধুরী বরকত ইবনে সালাম, কোতয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মাষ্টার, সাধারন সম্পাদক সামছুল আলম, যুবলীগের আহবায়ক এএইচএম ফোয়াদ। মন্ত্রী বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে বলেন, এতিমের টাকা চুরি করে সে এখন জেল খাটছে। খালেদা জিয়াকে আওয়ামী লীগ জেলে রাখেনি। ওয়ান ইলেভের সরকারের সময়কার মামলায় তিনি এখন জেলে। এতে আওয়ামী লীগের কোন হাত নেই। মন্ত্রী আরো বলেন, এক সময় ফরিদপুর শহর ছিল সন্ত্রাসের রাজত্ব। সন্ত্রাসীদের কারনে কোথায়ও শান্তি ছিলনা। শহর থেকে কেউ কোন কিছু কিনে গ্রামে আসতে পারতো না। সন্ত্রাসীরা সবকিছু কেড়ে নিতো। এখন যে কেউ দুই লাখ টাকা হাতে নিয়ে আসলেও কেউ ফিরেও তাকায় না। তিনি উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, যারা সন্ত্রাসী লালন করেছে, যারা বিগত দিনে কোন উন্নয়ন করতে পারেনি তাদের ভোট চাওয়ার অধিকার নেই। বিএনপির প্রার্থীকে উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী বলেন, বিএনপির প্রার্থী কোন প্রচারনায় নামেনা। তার কোন প্রচার আমার চোখে পড়েনি। শহর থেকে ভাষানচর পর্যন্ত আসার পথে শুধুমাত্র চারটি পোষ্টার দেখতে পেলাম। আর আমার পোষ্টার চারিদিকে ছেয়ে গেছে। তারা আর্মি আসার অপেক্ষায় বসে আছে। তারা মনে করে, আর্মি এসে তাদের ভোট কেটে জিতিয়ে দেবে। তিনি বলেন, এসব চিন্তা বাদ দিয়ে ভোটে যখন দাড়িয়েছেন তখন মানুষের কাছে গিয়ে ভোট চান।
মন্ত্রী এর আগে বিকেলে চরমাধবদিয়া হাইস্কুল মাঠে নির্বাচনী সভা করেন। রাত ৮টার দিকে মন্ত্রী শহরের পূর্বখাবাসপুরের হিতৈষী স্কুল মাঠে আরেকটি সমাবেশে বক্তৃতা করেন।

আরও পড়ুন...

প্রবীন সাংবাদিক ইউসুফ রেজা মন্টুর মৃত্যু

কন্ঠ রিপোর্ট # ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক সংবাদ এর সাবেক জেলা প্রতিনিধি ইউসুফ …

ফরিদপুরে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষে নিহত-২, আহত-১২

সোহাগ জামান # ফরিদপুরের কানাইপুরে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গঙ্গাবর্দী নামক স্থানে বাস-ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে দ্জুন নিহত …