ফরিদপুর সদর

স্বপ্ন পূরন হলো শিল্পি সাবিনার

সোহাগ জামান #
গানের কন্ঠটা তার বেশ ভালো। বিভিন্ন প্রোগ্রামে গান গেয়ে সকলের প্রশংসাও পাচ্ছেন। তবে গানের অনুশীলন চালিয়ে যাবার জন্য তার ছিলনা কোন হারমোনিয়াম। ফলে গানের অনুশীলন চালিয়ে যেতে বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছিল দরিদ্র পরিবারের সন্তান, প্রতিভাবান শিল্পি সাবিনার। সাবিনার আগ্রহ দেখে এবং গানে মুগ্ধ হয়ে তাকে হারমোনিয়াম ও তবলা ডুগি কিনে দেন সমরিতা জেনারেল হাসপাতাল লিঃ এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর, লায়ন্স ক্লাব অব ফরিদপুরের ইলেক্ট সেক্রেটারী মহসিন শরীফ। লায়ন্স ক্লাবের পক্ষ থেকে নিজ অর্থায়নে তিনি সাবিনাকে ২৩ হাজার টাকা দিয়ে আধুনিক একটি হারমোনিয়াম ও ডুগি-তবলা কিনে দেন। শনিবার সন্ধ্যায় এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সাবিনার হাতে এসব সামগ্রী তুলে দেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন লায়ন্স ক্লাবের ইলেক্ট প্রেসিডেন্ট (২০১৯-২০২০) লায়ন মোস্তফা খান, লায়ন খন্দকার ফজলে রাব্বি, লায়ন মোস্তাফিজুর রহমান লাবলুসহ ক্লাবের অন্যান্য কর্মকর্তারা। গানের সরঞ্জাম পেয়ে বেশ খুশি সাবিনা ও তার বাবা-মা। সাবিনা জানান, তিনি নিয়মিত গানের অনুশীলন করতে পারছিলেন না একটি হারমোনিয়ামের জন্য। দরিদ্র বাবার পক্ষে হারমোনিয়াম কিনে দেবার কোন সামর্থ্য ছিল না। ফলে গানের অনুশীলন একপ্রকার বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তিনি লায়ন মহসিন শরীফের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সাবিনা বলেন, এখন আর গান করতে কোন অসুবিধা হবেনা। এখন থেকে নিয়মিতই গানের অনুশীলন চালিয়ে যেতে পারবো। সাবিনার বাবা-মা তার মেয়ের জন্য হারমোনিয়াম, ডুগি-তবলা প্রদান করায় মহসিন শরীফের কাছে চির কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, আমার মেয়ে খুব ভালো গান করে। গানের কারনে বিভিন্ন স্থান থেকে তার ডাক আসতো। কিন্তু হারমোনিয়ামসহ আনুষাঙ্গিক যন্ত্রপাতি না থাকার কারনে সে গানের অনুশীলন করতে পারতো না। ফলে সাবিনার মন খারাপ থাকতো সব সময়। আমাদের ইচ্ছে আমার মেয়ে দেশের নামকরা একজন শিল্পি হবে। লায়ন্স ক্লাবের সেক্রেটারী মহসিন শরীফকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই। তার কারনেই আমার মেয়ে ফের গানের অনুশীলন করতে পারছে। মহসিন শরীফের এ অনুদান সাবিনার সঙ্গীত জীবনে চলার পথে অগ্রণী ভুমিকা পালন করবে নিঃসন্দেহে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *