নগরকান্দা

মুক্তিযোদ্ধাকে লাঠিপেটা, সালথা থানার ওসি প্রত্যাহার

বিশেষ প্রতিবেদক।
ফরিদপুরের সালথায় পুলিশের বিরুদ্ধে এক মুক্তিযোদ্ধাকে গালিগালাজ ও লাঠিপেটার অভিযোগ উঠায় প্রত্যাহার করা হয়েছে সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মাদ আলী জিন্নাহ্কে। বুধবার সকালে তাকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে নিয়ে ফরিদপুর পুলিশ লাইনস-এ সংযুক্ত করা হয়।
এ বিষয় ফরিদপুর পুলিশ সুপার মো. আলীমুজ্জামানের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, এক মুক্তিযোদ্ধা লাঠিপেটার ঘটনায় ওসির বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তার তদন্ত করে প্রমাণ পাওয়া যায়নি বা সত্যতাও মেলেনি। তারপরেও স্থানীয় সামাজিক পরিবেশ ও পরিস্থিতির বিষয়টি বিবেচনা করে প্রত্যাহার করা হয়েছে ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে।
গত শনিবার (৯ জানুয়ারী) দুপুরে পুলিশ কর্তৃক মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেনকে গালিগালাজ ও লাঠিপেটার অভিযোগ এনে সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রত্যাহারের দাবি জানান মুক্তিযোদ্ধারা। সালথা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে এ দাবি জানান মুক্তিযোদ্ধারা। একই দাবিতে গত মঙ্গলবার মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে নগরকান্দা উপজেলার মুক্তিযোদ্ধারা।
সালথা ওসির বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাকে লাঠিপেটা করার অভিযোগ ওঠার পর গত ৯ জানুয়ারি জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে বিষয়টি তদন্তের জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) জামাল পাশার নেতৃত্বে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটিকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হলেও পরবর্তিতে কমিটির অনুরোধে আরও তিন দিন সময় বাড়ানো হয়। গত মঙ্গলবার রাতে তদন্ত কমিটি পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামানের কাছে প্রতিবেদন জমা দেয়। ওই প্রতিবেদনে ওসির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সত্যতা প্রমাণিত হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *