ফরিদপুর সদর

ফরিদপুর রেন্ট এ কার শ্রমিক ইউনিয়ন অফিসে রহস্যজনক চুরি

বিশেষ প্রতিবেদক।
ফরিদপুর জেলা ে ন্ট এ কার ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যালয়ে চুরির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার রাত থেকে রবিবার ভোরের যে কোন সময় এ চুরির ঘটনাটি ঘটে। শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যালয়ে চুরির বিষয়টি শত্রুতামূলক বলে দাবী করেছেন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ মিলন বেপারী। এ বিষয়ে কোতয়ালী থানায় অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে।


অভিযোগ সূত্রে এবং শ্রমিক ইউনিয়নের কর্মকর্তারা জানান, শহরের গোয়ালচামটস্থ হাউজিং সংলগ্ন এলাকার মাইক্রো স্ট্যান্ডে শ্রমিক ইউনিয়নের নিজস্ব অফিসটি অবস্থিত। শুক্রবার রাতে অফিসটি তালা মেরে কর্মকর্তারা চলে যান। পরবর্তীতে রবিবার সকালে অফিসটি খুলে দেখতে পান রুমের বিভিন্ন আলমারী ভাঙ্গা এবং কাগজপত্র তছনছ করা। পরে দেখা যায়, অফিসের টিনের বেড়া কেটে দুস্কৃতিকারীরা ভেতরে প্রবেশ করে স্টিলের আলমারী, ফাইল কেবিনেট ক্যাশ বাক্সের ড্রয়ার ভেঙ্গে আলমারীতে রক্ষিত শ্রমিকদের ৩টি লেজার খাতা, ৬৫০টি স্মার্ট কার্ড, নগদ ১ হাজার ৭শ টাকাম একটি এলইউডি টিভি নিয়ে যায়। এছাড়া অফিসে থাকা শ্রমিক ইউনিয়নের নবনির্বাচিত কমিটির সদস্যদের টানানো ব্যানারে থাকা ৫ জনের ছবি ছুরি দিয়ে কেটে ফেলা হয়েছে। রহস্যজনক এ চুরির ঘটনায় শ্রমিকদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মিলন বেপারী কোতয়ালী থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন।


শ্রমিক ইউনিয়নের অফিসে চুরির বিষয়টি রহস্যজনক দাবী করে ইউনিয়নের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ মিলন বেপারী বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে যারা পরাজিত হয়েছেন তারাই হয়তো এ কাজের সাথে জড়িত রয়েছেন। যদি চুরির ঘটনা ঘটতো তাহলে ফাইলপত্র, শ্রমিকদের কার্ড ও লেজার খাতা নিয়ে যেতোনা। তারা পরিকল্পিতভাবে এসব চুরি করে নিয়ে গেছে। এছাড়া তারা নির্বাচিত সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকের ছবিসহ ৫ জনের ছবি ছুরি দিয়ে কেটে ফেলেছে। তারা জানান, দুস্কৃতিকারীরা নির্বাচিত কমিটির কাগজপত্র ও মামলা সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে যাবারা কারনেই ধারনা করা হচ্ছে পরাজিতরা এহেন কাজের সাথে সম্পৃক্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *