ফরিদপুর সদর

করোনা উপসর্গ নিয়ে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তার মৃত্যু

সোহাগ জামান।
ফরিদপুরে জ্বর, কাশি উপসর্গ নিয়ে ৪৮ বছর বয়সী এক ব্যাক্তি মারা গেছেন। ফরিদপুর শহরের হাউজিং স্টেটেট এর মেজর আজাদের মালিকানাধীন ছয়তলা বিশিষ্ট একটি ভবনের নীচতলার তিনি ভাড়া থাকতেন।
বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে ওই ভাড়া বাড়িতে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। ওই সময় তিনি ওই ফ্লাটে একাই ছিলেন। ঘরটি ভিতর থেকে বন্ধ ছিল। ফরিদপুর কোতয়ালী থানার পুলিশ দরোজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে ওই ব্যাক্তিকে চেয়ারে বসা মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে।
মারা যাওয়া ঐ ব্যক্তি একটি পুষ্টি বিষয়ক বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে টেকনিক্যাল ডিরেক্টর হিসেবে ফরিদপুরে কর্মরত ছিলেন। তাঁর বাড়ি রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার একটি গ্রামে। তিনি বিবাহিত এবং তার তিনটি মেয়ে রয়েছে।
ওই প্রতিষ্ঠানের এক কর্মকর্তা জহুরুল ইসলাম জানান, ফরিদপুর শহরের কমলাপুরে তাদের কার্যালয়। তারা মোট ২০জন এ কার্যালয়ে কর্মরত রয়েছেন। গত পাঁচ দিন ধরে ওই কর্মকর্তা জ্বর, কাশিসহ বিভিন্ন উপসর্গে ভুগছিলেন। এর পর থেকে তাকে বিচ্ছিন্ন করা হয়। প্রতিদিন তারা প্রয়োজনীয় ওষুধ ও খাবার নিয়ে ওই ব্যাক্তির ভাড়া বাড়িতে যেতেন।
জহুরুল ইসলাম আরও জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে ওই ব্যাক্তির সাথে তাঁর মুঠোফোনে কথা হয়। তখন তিনি বলেছিলেন তার স্ত্রী বাড়ী থেকে রওনা দিয়ে আজ ফরিদপুর এসে পৌছাবে। তিনি বলেন, দুপুর দইুটার দিকে তারা ওই বাড়িতে ওষুধ ও খাবার নিয়ে যান। অনেক ডাকাডাকি করে কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে তারা পুলিশে খবর দেন।
ফরিদপুর কোতয়ালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ফোরকান খান বলেন, ধারণা করা হচ্ছে ওই ব্যাক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। এজন্য অফিসের লোকজন তাকে বিচ্ছিন্ন করে রেখেছিল। তিনি বলেন, ওই ব্যাক্তির করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর পর তার মৃতদেহ স্বাস্থ্য বিধি মেনে রাজশাহীতে তার নিজ বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *